1. hasanf14@gmail.com : admin : Hasan Mahamud
অসমাপ্ত | নুসরাত ইমরোজ হৃদিতা - Public Reaction
সোমবার, ০১ জুন ২০২০, ১১:৩০ পূর্বাহ্ন

অসমাপ্ত | নুসরাত ইমরোজ হৃদিতা

  • প্রকাশ : শুক্রবার, ২২ মে, ২০২০
  • ১৮৪ বার

যেদিন শেষবারের মত দেখা হবে, তুমি কি ভুল করে সেই শুরুর তুমি হবে?
যে তুমিতে জীবনের সব স্বপ্ন রঙিন হয়ে জাগ্রত হয়েছিল
যে তুমিতে কোনোদিন সত্যি না হওয়ার ভাবনারাও সত্যি হয়েছিল
শেষবারের মত ভুল করে তুমি কি সেই মনের ডায়রী হবে?
যে ডায়রীতে মনের সব অর্থহীন কথাগুলোও অর্থ খুঁজে পাবে,
জমতে থাকা বহুদিনের কথাগুলো খুব যত্নে আশ্রয় পাবে
শেষবারের মত তোমার চোখগুলো কি শুরুর মত করে আমায় দেখবে?
যে চোখের দিকে তাকাতেই লাজুক আমি বারবার গলেছিলাম,
যে চোখে অতি সাধারণ আমিকেও স্বর্গের অপ্সরা হতে দেখেছিলাম
শেষবারের মত আমার মুখে সেই অসমাপ্ত হাসি হবে?
যে হাসি ছিল তোমার দেওয়া স্বর্গসুখের প্রতিচ্ছবি
যে হাসিতে বিরাজ করত তুমিঘেরা কল্পনার সুখের পৃথিবী
শেষবারের মত আমার অশ্রু মুছে দিবে?
যেভাবে আলিঙ্গনে সব কষ্ট ভুলিয়ে দিতে
ঝাপসা চোখ, লাল মুখটিতে যেভাবে অশ্রুসিক্ত হাসি ফোটাতে

মনে পড়ে বলেছিলে সমুদ্র পাড়ে একসাথে সূর্যোদয় সূর্যাস্ত দেখার কথা,
শেষবারের মত আমার হাতটা ধরে না হয় তা পূরণ করো।
মনে পড়ে বলেছিলে তোমাদের ওই বাড়িটিতে একদিন আমারও একটা সংসার হওয়ার কথা
তোমরা কেউ জানবেনা কিন্তু ওই বাড়ির প্রতিটি কোণায় কল্পনায় একটা সংসার পড়ে থাকবে আমারও
তোমাদের বাড়ির সেই চিলেকোঠায় কল্পনাতে চায়ের চুমুকে বিকেলের অনেক হাসি গল্প জমা হয়ে থাকবে
অঝোর বৃষ্টিতে তোমাদের বাড়ির ছাদে কল্পনাতে তোমার আমার অসংখ্য বৃষ্টিস্নান সাক্ষী হয়ে থাকবে
মনে পড়ে তুমি রাগ করলে কবিতা লিখে রাগ ভাঙাতাম
সেগুলো কি জমা রেখেছ নাকি প্রতিবারের মত হারিয়ে ফেলেছ?
কবিতাগুলো আজও জমা রেখেছি তোমার পড়ার অপেক্ষায়
শেষবারের মত পড়লে যেন তোমার রাগ ভাঙায়
তোমার মন ভালো করতে আমার লেখা চিরকুটগুলো কি আর পড়?
নাকি তোমার অবহেলায় আমার মত চিরকুটগুলোও আজ ধুলায় জড়োসরো
আচ্ছা প্রতি সকালে ক্লাসে যেতে যখন ফোনে আমার গলা শুনে আর তোমার ঘুম ভাঙ্গবেনা, আমার কথা কি একটুও মনে পড়বে না?
অসুখ হলে একটু পরপর যখন অস্থির আমি খোঁজ নিতে আর জ্বালাব না, আমার কথা কি তখন মনে পড়বে না?
সারাদিনে আমাকে যখন আর ফোন দিয়ে বলতে শুনবেনা “খুব মিস করছি”, আমার কথা কি আর মনে পড়বেনা?
খুব একা লাগলে আমাকে যখন আর পাশে পাবেননা আমার কথা কি তখন মনে পড়বেনা?
মনে পড়ে আমাদের একসাথে পাশাপাশি বৃদ্ধ হওয়ার কথা ছিল
বিদায়বেলা তোমার প্রিয় মুখটি আমার শেষ দৃষ্টি হওয়ার কথা ছিল
শত রজনী প্রভাত একসাথে পেরুনোর কথা ছিল
কত গান তোমার গিটারের তালে একসাথে গাইবার কথা ছিল

আমাদের গল্পটা কেন মাঝপথে বদলে যেতে হল?
মাঝপথে তোমার ভালবাসার রং বদলানো কি খুব জরুরী ছিল?
আমার চেয়ে ক্ষণিকের সঙ্গগুলো এতটাই জরুরী হতে হল!
সেই স্বপ্নপূরণের মানুষটি কি করে এতটা অচেনা হয়ে গেল?
তুমিহীনা প্রহরগুলো নিত্য পেরুনোর যন্ত্রণা কি করে বুঝবে
এই শেষ দেখা হয়তো তোমার কাছেই আমার শেষ অধ্যায়।
কিন্তু আমার দৃষ্টি তো চিরকালের জন্য অন্ধত্ব বরণ করবে সেই প্রিয় মুখের শেষ চাহনীতে।
আমার মস্তিস্কে সেই মুহূর্ত থেকে শুরু হবে নতুন যুদ্ধ আর রক্তক্ষয়।
তোমার তীব্র স্পষ্ট স্মৃতিগুলো ভুলার বৃথা যুদ্ধে প্রতি মুহূর্তে শহীদ হব মৃতাত্মার দেহটিতে ।
যদি কোনোদিন খুব মনে পড়ে, ভুল বুঝে ফিরে চাওয়ার আকুল যন্ত্রণা এসে ভর করে,
মৃত ভেবে নিয়ে না হয় দু ফোঁটা অশ্রুজল ফেলে ভুলে যেও।
তোমার মেরে ফেলা নি:শ্বাস নেওয়া মৃত দেহের কাছে সতেজ অনুভূতি আর পাবে কি করে!
একদিন হয়ত বন্ধ হবে এই অশ্রুক্ষনণ, মস্তিস্কের এক কোণায় স্থায়ী হবে স্মৃতিগুলোও।
ভালবাসাগুলো পালিয়ে থাকবে আরেকটি কোণে, চিরসঙ্গী হবে যুদ্ধের ক্ষতস্থানগুলোর ব্যথা,
দুনিয়ার কাছে এরই নাম ভুলে যাওয়া আর আমার কাছে থাকবে মানিয়ে বয়ে চলার ভান অযথা।
স্মৃতিগুলো কেবল যুদ্ধ থামায়, অশ্রুগুলো কেবল হয় শুকনো
সত্য ভালবাসা মনে সুপ্ত হয়ে আমরণ রোগে ভুগে, মৃত্যু হয়না কখনো।

...

2 responses to “অসমাপ্ত | নুসরাত ইমরোজ হৃদিতা”

  1. Rojadar bekhti says:

    Apa apnar kobita porte porte gola shukai gese.

  2. Rojadar kobi says:

    Kobita mone moneo pora jay bhai, iftar e pani beshi kore kheye niyen

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো আর্টিকেল
© All rights reserved © 2020 Public Reaction
Theme Customized By BreakingNews